মুখোমুখি হতে চায় গ্যাংস্টার গোল্ডি, নিরাপত্তা কমালেই খুন হবেন সালমান!

লরেন্স বিষ্ণোই-এর বিস্ফোরক সাক্ষাৎকারের পর ইমেইলের মাধ্যমে ফের খুনের হুমকি পেয়েছেন সালমান খান। যেখানে বলা হয়, সালমান খানের চলমান নিরাপত্তা খানিক কমলেই খুন করা হবে তাকে! যার ফলে আরও বাড়ানো হলো বলিউড ভাইজানের নিরাপত্তা।

জানা গেছে, ইমেইলটি রোহিত গর্গ নামে একজন পাঠিয়েছিলেন এবং উল্লেখ করেছিলেন যে, কানাডিয়ান গ্যাংস্টার গোল্ডি ব্রার সালমান খানের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে কথা বলতে চান। এতে গ্যাংস্টার বিষ্ণোইয়ের সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারের কথাও উল্লেখ আছে, যেখানে বিষ্ণোই বলেছেন সালমানকে হত্যা করাই তার জীবনের অন্যতম লক্ষ্য।

টাইমস অব ইন্ডিয়া জানিয়েছে, শনিবার রাতে এই হুমকি বার্তা এসেছে ইমেইলে। সালমান তার অফিসিয়াল কাজের জন্য যে মেইল অ্যাকাউন্টটি ব্যবহার করেন, সেখানে মোহিত মার্গ নামের এক ব্যক্তির কাছ থেকে এসেছে মেইলটি।

ওই চিঠিতে বিষ্ণোইয়ের সাক্ষাৎকারটি দেখার পরামর্শও দেওয়া হয়েছে। দুদিন আগে কারাগারে বসে সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে গ্যাংস্টার লরেন্স বিষ্ণোই ফের জানিয়েছেন, ক্ষমা না চাইলে সালমান খানকে হত্যার চিন্তাভাবনা থেকে তিনি সরছেন না।

নিউজ এজেন্সি এএনআই টুইট করেছে, সম্প্রতি অভিনেতা সালমান খানকে ইমেইলের মাধ্যমে হুমকি দেওয়ার পরে মুম্বাই পুলিশ তার বাড়ির বাইরে নিরাপত্তা আরও জোরদার করা হয়েছে।

ইমেইল পেয়ে মুম্বাই থানায় মোহিত মর্গ, গোল্ডি ব্রার ও লরেন্স বিষ্ণোইয়ের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সালমান। নতুন ‘হুমকি’ ভাইজানের পরিবার ও তার টিমের সদস্যদের নতুন করে উদ্বেগে ফেলেছে। বান্দ্রায় সালামানের বাসভবন ঘিরে এবং সালমান ও তার পরিবারের সব সদস্যদের নিরাপত্তা জোরদার করেছে পুলিশ।

২০১১ সালে ‘রেডি’ সিনেমার শুটিংয়ের মাঝে সালমান খানকে হত্যার হুমকি দিয়ে আলোচনায় এসেছিলেন লরেন্স বিষ্ণোই ।এরপর ২০১৮ সালে সালমানকে হত্যার জন্য তিনি তার সহযোগী সম্পত নেহরাকে দায়িত্ব দেন। কিন্তু সে সময় অস্ত্রের জটিলতায় পরিকল্পনা মাফিক কাজ সারতে পারেনি খুনিরা।

২০২১ সালে থেকে তিহার জেলে বন্দি আছেন বিষ্ণোই। গত বছরের জুনে সালমানের মুম্বাইয়ের বান্দ্রার বাড়িতে উড়ো চিঠি আসার পর তার নাম ফের আলোচনায় আসে। তবে সে সময় পুলিশের কাছে হত্যার হুমকির অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি। এরপর গত বছরে শেষ নাগাদ সালমান হত্যায় বিষ্ণোইয়ের হত্যার ছক বেরিয়ে আসে দিল্লি ও পাঞ্জাব পুলিশের তদন্তে।

গত বছর পাঞ্জাবি গায়ক ও কংগ্রেস নেতা সিধুকে গুলি করে হত্যার দায় স্বীকার করে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলেন গ্যাংস্টার গোল্ডি। সে সময় সালমান ও তার বাবা সেলিম খানকে খুনের হুমকি দিয়ে যে উড়োচিঠি দেওয়া হয়েছিল, তাতেও গোল্ডি ও গ্যাংস্টার লরেন্স বিঞ্চোই জড়িত ছিলেন বলে জানিয়েছিল মুম্বাই পুলিশ।

পূর্বের খবরবাঁশখালীতে ঘর পাচ্ছে আরও ৮০ গৃহহীন পরিবার
পরবর্তি খবরপাকিস্তান-আফগানস্থানে শক্তিশালী ভূমিকম্পে নিহত ১১