বাংলাদেশ-ইংল্যান্ড পরিসংখ্যানে এগিয়ে যারা

বিশ্বকাপে আজ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ডে বিপক্ষে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানকে হারানোর পর আজ টাইগারদের চ্যালেঞ্জ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। দুই দলের আজকের ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ধর্মশালা স্টেডিয়ামে। আর বিশ্বকাপে ইংলিশদের একাধিকবার হারানোর সুখস্মৃতি আছে লাল-সবুজের দলের।

বাংলাদেশ ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে স্মরণীয় মুহূর্তের তালিকা করতে গেলে অনায়াসেই চলে আসবে ২০১৫ বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড বধের গল্প। শুধু গল্প নয় যা একটা অমর হয়ে যাওয়া ইতিহাস। যেই একটা জয় পাল্টে দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের খোলস। কি ছিল তখন বাংলাদেশ দলে! শেষ দুই বছরে জয় বলতে শুধু ছিল বিশ্বকাপের আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজে। আর এই দলটাই কিনা হারিয়ে দিল ক্রিকেটের মোড়লদের! ইংল্যান্ড ক্রিকেটকে কফিনবন্ধী করে ধরিয়ে দেয় দেশের বিমান।

তারও আগে বিশ্বকাপে ইংলিশ বধের গল্প আছে। সেটাও আবার ঘরের মাঠে, ২০১১ বিশ্বকাপে। সেবার বিশ্বকাপের স্বাগতিক ছিল বাংলাদেশ, ফলে প্রত্যাশাও ছিল বেশি। তখন বাংলাদেশ দল এখনকার মত শক্তিশালী দল হয়ে উঠেনি। ফলে জয়টাকে তখন দেখা হয়েছিল অঘটন হিসেবে।

২০১১ বিশ্বকাপে ইংলিশদের হারানোর সময় বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক ছিলেন সাকিব আল হাসান। আর ২০১৫ সালে যখন ইংল্যান্ডকে হারিয়ে কোয়ার্তার ফাইনালে ওঠে টাইগাররা সেবার প্রধান কোচ ছিলেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। আর এবারের টুর্নামেন্টে যুগলবন্দী হয়েছে সাকিব-হাথুরুর। আজও তাই দারুণ এক জয়ের প্রত্যাশাই করছেন ভক্ত-সমর্থকরা।

এদিকে বিশ্বকাপের দেখায় বাংলাদেশ এগিয়ে থাকলেও একদিনের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দুই দলের মোট মেকাবেলার হিসাবে এগিয়ে আছে ইংলিশরাই। দুই দল এখনো পর্যন্ত ওয়ানডেতে মুখোমুখি হয়েছে মোট ২৪টি ম্যাচে। এসব ম্যাচে ইংলিশদের জয় ১৯ বার আর বাংলাদেশ জিতেছে মোট ৫টি ম্যাচে।

আবার ইংলিশদের বিপক্ষে সবশেষ ম্যাচেও আছে টাইগারদের জয়ের স্মৃতি। এ বছরের মার্চে তিন ম্যাচের সিরিজটি ইংল্যান্ড ২-১ ব্যবধানে জিতে নিলেও শেষ ম্যাচে জয় পেয়েছিল বাংলাদেশ। লায়ন্সদের বিপক্ষে এইসব জয়ের আত্মবিশ্বাস নিয়েই আজ মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

 

পূর্বের খবরগাজায় রাতভর ইসরাইলের হামলা, বন্ধ খাবার ও পানি সরবরাহ
পরবর্তি খবরআর্থিক খাতে আগামীতে আসতে পারে বড় ধাক্কা