বাংলাদেশে ৫২টি বিদেশি দূতাবাস রয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

বর্তমানে বাংলাদেশে ৫২টি বিদেশি দূতাবাস আছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ  কে আবদুল মোমেন। সোমবার জাতীয় সংসদে এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।

আর সৈয়দ আবু হোসেনের প্রশ্নের জবাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বিশ্বের ৬০টি দেশে বাংলাদেশের ৮১টি কূটনৈতিক মিশন চালু রয়েছে। এছাড়া আরও ১১টি নতুন মিশন স্থাপনের লক্ষ্যে মন্ত্রণালয় কাজ করছে। সব প্রশাসনিক প্রক্রিয়া শেষে চালুর অপেক্ষায় রয়েছে দুটি মিশন। তা হলো- কাবুল (আফগানিস্তান) ও ফ্রিটাউন (সিয়েরালিওন)। মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জোহর বাহরু (মালয়েশিয়া) ও আসলোতে (নরওয়ে) মিশন স্থাপনে নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নীতিগত অনুমোদন ও মন্ত্রিসভার অনুমোদনের পর ওআইসি (জেদ্দা, সৌদি আরব) স্থায়ী মিশন স্থাপনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়, অর্থ মন্ত্রণালয়, প্রশাসনিক উন্নয়ন সংক্রান্ত সচিব কমিটির অনুমোদন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পরে বুয়েন্স আয়ারস (আর্জেন্টিনা), ডাবলিন (আয়ারল্যান্ড), ফ্রাঙ্কফুট (জার্মানি), সাওপাওলো (ব্রাজিল) ও গুয়াংজোতে (চীন) মিশন স্থাপনের জন্য পরবর্তী অনুমোদনের অপেক্ষায় আছে।

১৫ বছরে ৭৬১ কোটি টাকা জরিমানা আদায় : নরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল জানান, বর্তমানে দেশে ৮টি মেট্রোপলিটন পুলিশ ইউনিট রয়েছে। গত ১৫ বছরে মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগগুলো জরিমানা আদায়ের মাধ্যমে সর্বমোট ৭৬১ কোটি ৯৯ লাখ ২৩ হাজার ২৭৭ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দিয়েছে।

দিদারুল আলমের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ২০২৩ সালে ৪৭৭ জন পুলিশ সদস্য জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে যোগদান করেছেন। তার মধ্যে ৩৩০ জন পুরুষ এবং ১৪০জন নারী। সাউথ সুদান, সাইপ্রাস, লিবিয়া, মালি, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক এবং ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক অব কঙ্গোতে শান্তিরক্ষায় নিয়োজিত রয়েছেন পুলিশের সদস্যরা।

নির্বাচন নিয়ে মানুষ উদ্বিগ্ন- মোকাব্বির খান : দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচন নিয়ে দেশের মানুষ উদ্বিগ্ন বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরামের দলীয় সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান। তিনি বলেন, শুধু বিনিয়োগকারীরাই নয়, সাধারণ মানুষের মধ্যেও অস্থিরতা ও আতঙ্ক বিরাজ করছে। আমরা নিজেদের স্বার্থে নির্বাচন ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দিয়েছি। নির্বাচন নিয়ে মানুষ উদ্বিগ্ন। জনগণ চায় একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন।
সোমবার জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল (সংশোধন) বিল- ২০২৩ পাসের ওপর জনমত যাচাইয়ের আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি এ কথা বলেন।

মোকাব্বির খান নির্বাচন নিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের পরস্পর দোষারোপের দিকে ইঙ্গিত করে বলেন, কথায় আছে তুমি অধম তাই বলিয়া আমি উত্তম হইবো না কেন? সুতারাং অতীতকে দোষারোপ করে কোনও লাভ নেই। আমার করণীয় আমি করার চেষ্টা করি।

পূর্বের খবরবিয়ের জন্য পাত্র খুঁজে পাচ্ছেন না মিমি
পরবর্তি খবরমঙ্গলবার জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডেকেছে বিএনপি