ধর্ষণের অভিযোগে কনটেন্ট ক্রিয়েটর ঈসমাইল আটক, হচ্ছে মামলা

দিনভর নানা গুঞ্জনের পর অবশেষে ধর্ষণের অভিযোগে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার আলোচিত কনটেন্ট ক্রিয়েটর ঈসমাইল হোসেনকে (৩৫) আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন বলে জানিয়েছেন হালুয়াঘাট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুল হক।

এর আগে আজ দুপুরে উপজেলার খন্দকপাড়া গ্রামের বাসিন্দা ভুক্তভোগী এক কিশোরীর মা ঈসমাইলের বিরুদ্ধে থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর ঈসমাইলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন‍্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়।

থানায় দায়ের হওয়া লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, ভুক্তভোগী কিশোরী ঈসমাইল হোসেনের বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ করার সময় বিয়ের প্রলোভনে তাকে ধর্ষণ করেন ঈসমাইল হোসেন। সর্বশেষ গত ৬ জুলাই রাতে ভুক্তভোগীর বাড়িতে গিয়ে ফের ধর্ষণ করেন ঈসমাইল। এ সময় বিয়ের কথা বললে ঈসমাইল বিয়ে করবে না বলে হুমকি দিয়ে চলে যায়।

ওসি বলেন, ধর্ষণের অভিযোগে ঈসমাইলের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের হওয়ার পর আমরা জানতে পারি ভুক্তভোগী কিশোরী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। এক বছর আগে ঈসমাইল ওই কিশোরীকে গোপনে বিয়ে করেছিলেন। সম্প্রতি তাকে তালাক দেওয়ায় কিশোরীর মা থানায় এই ধর্ষণের অভিযোগ করেন।

জানা যায়, ঈসমাইল হোসেন হালুয়াঘাট উপজেলার কালিয়ানীকান্দা গ্রামের বাসিন্দা মো. সুরুজ আলীর ছেলে। তার স্ত্রীসহ দুইটি সন্তান রয়েছে।

তবে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে একাধিকবার যোগাযোগ করলেও ভুক্তভোগী কিশোরীর মা’র ব‍্যবহৃত মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায়।

পূর্বের খবরচীনের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে শেখ হাসিনা
পরবর্তি খবর‘হাইপ্রোফাইল’ কয়েকজন প্রশ্নফাঁসকারীর নাম জানা গেছে