উত্তরা ব্যাংকে বঙ্গবন্ধুর শেয়ার পেলেন শেখ হাসিনা ও রেহানা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহানা তাদের পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উত্তরাধিকার সূত্রের শেয়ার পেয়ে উত্তরা ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার হয়েছেন। গত মঙ্গলবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার, শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির চেয়ারম্যান শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম এবং উত্তরা ব্যাংকের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে শেয়ার সার্টিফিকেট হস্তান্তর করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, উত্তরা ব্যাংকের মালিকানাধীন উত্তরা ব্যাংক সিকিউরিটিজ নামক ব্রোকারেজ হাউসে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানার নামে যৌথ বিও অ্যাকাউন্ট খুলে তাদের শেয়ার হস্তান্তর করা হয়েছে। মোট শেয়ার সংখ্যা ১ লাখ ৪৭ হাজার। উত্তরা ব্যাংকের শেয়ারের বর্তমান দর ২২ টাকা ৬০ পয়সা। সে হিসাবে এর বাজারমূল্য প্রায় ৩৩ লাখ টাকা। প্রতি শেয়ার ১০০ টাকা হিসেবে বঙ্গবন্ধুর নামে থাকা ৪০টি শেয়ারের অভিহিত মূল্য ছিল ৪ হাজার টাকা।

উত্তরা ব্যাংকের কর্মকর্তারা জানান, ১৯৬৫ সালে পূর্ব পাকিস্তানে বাঙালির মালিকানায় ইস্টার্ন ব্যাংকিং করপোরেশন লিমিটেড নামে বেসরকারি ব্যাংক গঠিত হয়। ওই ব্যাংকের ৪০টি শেয়ার কিনেছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তবে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর সব ব্যাংক ও বীমা কোম্পানির সঙ্গে ইস্টার্ন ব্যাংকিং করপোরেশনও জাতীয়করণ করা হয়। ১৯৭২ সালে ব্যাংকটি উত্তরা ব্যাংক নামে নতুন যাত্রা করে এবং মালিকানায় ছিল সরকার। এর পর ১৯৮৩ সালে সরকার ফের উত্তরা ব্যাংককে বেসরকারি মালিকানায় ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। জাতীয়করণের আগে যেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের নামে শেয়ার ছিল, তাদের প্রতি পাঁচটি শেয়ারের বিপরীতে একটি শেয়ার কেনার সুযোগ দেওয়া হয়। তবে বঙ্গবন্ধুর পক্ষে তাঁর শেয়ারের বিপরীতে কেউ মালিকানা নেননি।

উত্তরা ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা  জানান, পুরোনো নথি ধ্বংস করার আগে পরীক্ষা করতে গিয়ে তারা ইস্টার্ন ব্যাংকিং করপোরেশনে বঙ্গবন্ধুর ৪০টি শেয়ার থাকার তথ্য পান। বিষয়টি ব্যাংকের শীর্ষ কর্মকর্তাদের জানালে তারা বাংলাদেশ ব্যাংককে জানিয়েছিলেন। সম্প্রতি গভর্নর ও বিএসইসির চেয়ারম্যানকে জানালে তারা সিদ্ধান্ত নেন, প্রধানমন্ত্রীকে পিতার স্মৃতি হিসেবে ওই শেয়ারের উত্তরাধিকার হিসেবে নতুন করে শেয়ার দেওয়া হবে। এর পর নতুন শেয়ার ইস্যু-সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে প্রধানমন্ত্রীকে শেয়ার বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

উত্তরা ব্যাংকের কোম্পানি সচিব ইফতেখার জামান বলেন, ১৯৮৩ সালে উত্তরা ব্যাংককে বেসরকারীকরণের পর যত নগদ ও বোনাস (স্টক) লভ্যাংশ শেয়ারহোল্ডারদের দেওয়া হয়েছে, সেই হিসাব করে বঙ্গবন্ধুর উত্তরাধিকারী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর বোন শেখ রেহানাকে নগদ অর্থ ও শেয়ার দেওয়া হয়েছে। শেয়ার দেওয়ার জন্য নতুন করে শেয়ার ইস্যু করতে হয়েছে। নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি এ বিষয়ে অনুমোদন দেওয়ার পর উত্তরা ব্যাংক সিকিউরিটিজে বিও অ্যাকাউন্ট খুলে শেয়ার হস্তান্তর করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন, বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর কাজী ছাইদুর রহমান ও উত্তরা ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ রবিউল হোসেন।

এ বিষয়ে উত্তরা ব্যাংক জানিয়েছে, বঙ্গবন্ধুর উত্তরাধিকারী হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রেহানা সিদ্দিকের অনুকূলে হস্তান্তর করতে পেরে উত্তরা ব্যাংক আনন্দিত ও গর্বিত।

পূর্বের খবরস্মার্ট দেশ গড়তে স্মার্ট সৈনিক হিসেবে কাজ করতে হবে
পরবর্তি খবরসপ্তাহজুড়ে ভূমিকম্পের পর আইসল্যান্ডে আগ্নেয়গিরিতে অগ্ন্যুৎপাত