ইসরাইলের সমালোচনা করে তোপের মুখে গিগি হাদিদ

ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সুপার মডেল গিগি হাদিদ বলেছেন, ইসরাইলই একমাত্র দেশ যারা শিশুদের যুদ্ধবন্দি করে রাখে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে দেওয়া পোস্টে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

তবে ইসরাইল-হামাসের সংঘাতের প্রেক্ষাপটে এমন মন্তব্যের জেরে ক্ষোভের মুখে পড়েছেন গিগি হাদিদ। যদিও পরে পোস্টটি তিনি মুছে ফেলেছেন।

এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২৮ বছর বয়সি ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সুপার মডেল বরাবরই ইসরাইল-ফিলিস্তিন সংঘাতের বিষয়ে সোচ্চার। গত ৭ অক্টোবর হামাসের আকস্মিক আক্রমণের আগে তিনি ওই পোস্টে বলেন, ফিলিস্তিনিদের হত্যা, নির্যাতন, ধর্ষণ, অপহরণ ও নিপীড়ন করে আসছে ইসরাইল।

তিনি লেখেন, ইসরাইল বিশ্বের একমাত্র দেশ যারা শিশুদের যুদ্ধবন্দি করে রাখে। সেখানে আহমেদ আলমানসরা নামের ১৩ বছরের ফিলিস্তিনি সম্পর্কে এমন কথা বলা হয়।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম অনুসারে, আলমানসরা ও তার ভাই ২০ বছর বয়সি এক নিরাপত্তারক্ষী ও ১৩ বছর বয়সি ছেলেকে ছুরিকাঘাত করার পর ইসরাইলি পুলিশ গ্রেফতার করে। তার ১২ কারাদণ্ড হয় এবং পরে তা কমিয়ে সাড়ে ৯ বছর করা হয়।

তবে গিগি হাদিদের দাবি, গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যার মাঝেও দখলদার ইসরাইল আলমানাসরাকে অপহরণ করেছে ও নির্জন কারাবাসের রেখেছে। এভাবে শত শত ফিলিস্তিনি শিশুবন্দি ইসরাইলি কারাগারে ভুগছে।

গিগি হাদিদের রিপোস্ট করা এক ভিডিওতে দাবি করা হয়, স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা স্বীকার করেছেন যে, ইসরাইলি কর্তৃপক্ষ সম্মতি ছাড়াই বছরের পর বছর ধরে মৃত ফিলিস্তিনিদের অঙ্গ সংগ্রহ করছে।

হাদিদের অবস্থান সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভের সৃষ্টি করেছে। বেশ কয়েকজন ব্যবহারকারী মডেলিং এজেন্সি আইএমজি-কে এ সুপার মডেলের সঙ্গে চুক্তি বাতিলের দাবি তুলেছেন।

পূর্বের খবর৩০ দিনে ২১২ গাড়িতে আগুন
পরবর্তি খবরবাংলাদেশের পঞ্চম উইকেটের পতন