ইউক্রেনকে আরও ৪৫ বিলিয়ন ডলার সহায়তা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার সঙ্গে চলমান যুদ্ধে ইউক্রেনের জন্য নতুন করে আরও ৪৫ বিলিয়ান ডলারের নিরাপত্তা সহযোগিতা প্যাকেজ দেবে যুক্তরাষ্ট্র। এই প্যাকেজের মধ্যে বিভিন্ন অস্ত্রও থাকছে।

ইউক্রেনে যুক্তরাষ্ট্রের পাঠানো সামরিক সরঞ্জাম, সরবরাহ এবং আর্থিক সহায়তার রয়েছে। খবর আনাদোলু এজেন্সির।

রাশিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের সময় ইউক্রেনকে বিভিন্ন ধরনের সহায়তা প্রদানে নেতৃত্ব দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। জো বাইডেন তার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত কিয়েভকে ৪৪.৪ বিলিয়ন সামরিক সহায়তা দিয়েছে দেশটি।

এসব মার্কিন সহায়তার একটি উল্লেখযোগ্য অংশ ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে বিতরণ করা শুরু হয়। রুশ-ইউক্রেনীয় যুদ্ধ শুরু হয়েছিল ২০২২ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারিতে।

ইউক্রেনে পরিচালিত বৈশ্বিক সাহায্যের তথ্য সংগ্রহে বিশেষজ্ঞ একটি জার্মানি-ভিত্তিক গবেষণা প্রতিষ্ঠান কিয়েল ইন্সটিটিউট ফর দ্য ওয়ার্ল্ড ইকোনমি জানিয়েছে, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সংঘাতের শুরু থেকে ইউক্রেনকে প্রায় ৭৬ বিলিয়ন ডলার মানবিক, আর্থিক এবং সামরিক সহায়তা দিয়েছে।

ইউএস এজেন্সি ফর ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্টের (ইউএসএআইডি) তথ্যের ভিত্তিতে জানা গেছে, সংঘাত শুরু হওয়ার পর থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনে মানবিক সহায়তার জন্য ২.৬ বিলিয়ন ডলারের প্রস্তাব দিয়েছে।

যদিও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র দেশটিকে তার আর্থিক সহায়তার মূল্য সম্পর্কে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি প্রকাশ করেনি। তবে কিয়েল ইনস্টিটিউট অনুমান করেছে যে এই সহায়তার মোট পরিমাণ প্রায় ২৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

পূর্বের খবরঅভিনয় ছেড়ে রাজনীতিতে পা দেওয়ার গুঞ্জন সামান্থার
পরবর্তি খবরবৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বহুমুখী ঝুঁকিতে