আফগানিস্তানে ব্রিটিশ বাহিনীর বেআইনি হত্যার অভিযোগ, তদন্ত শুরু

আফগানিস্তানে ব্রিটিশ সেনা সদস্যদের হাতে বেআইনি হত্যাকাণ্ডের ব্যাপারে তদন্ত শুরু করেছে ব্রিটেন। বুধবার থেকে এই তদন্তের কাজ শুরু হয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

এই কমিটির প্রধান লর্ড জাস্টিস হ্যাডন-কেভ এ ব্যাপারে প্রাসঙ্গিক তথ্যসহ এগিয়ে আসার জন্য জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, সামরিক বাহিনী এবং দেশের সুনাম রক্ষার জন্য এই তদন্ত খুব গুরুত্বপূর্ণ।

২০১০ সালের মাঝামাঝি থেকে ২০১৩ সালের মাঝামাঝি সময়ে আফগানিস্তানে মোতায়েন ব্রিটিশ স্পেশাল ফোর্সেস (কমান্ডো) বাহিনীর পরিচালিত রাতের বেলার অভিযানগুলোর ব্যাপারে এই তদন্তে অনুসন্ধান চালানো হবে।

আইন বহির্ভূত হত্যা এবং সেগুলোকে পরবর্তীকালে ধামাচাপা দেয়া – দুটি অভিযোগই এই তদন্ত কমিটি খতিয়ে দেখবে।

কমিটির প্রধান লর্ড জাস্টিস হ্যাডন-কেভ বলেন, এটি স্পষ্টতই গুরুত্বপূর্ণ যে আইন ভঙ্গ করেছে যে তাকে তদন্তের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে। এবং একইভাবে, যারা কোন দোষ করেননি তাদের মাথার ওপর থেকেও সন্দেহের কালো মেঘ দূর করতে হবে।

আফগান কৃষক আব্দুল আজিজ উজবাকজাই, যার ছেলে এবং পুত্রবধূকে ২০১২ সালে এক নৈশ অভিযানে ব্রিটিশ স্পেশাল ফোর্সেসের সদস্যরা হত্যা করেছিল। তার নাতি ইমরান এবং বিলাল ওই অপারেশনে গুরুতরভাবে আহত হয়েছিল।

তিনি বিবিসিকে বলেছেন, এই তদন্ত আমার ছেলে ও পুত্রবধূ, এবং ইমরান ও বিলালের বাবা-মাকে তাদের কাছে ফিরিয়ে আনতে পারবে না। কিন্তু ১১ বছর পর আমি এখনও চাই যে ব্রিটিশ সৈন্য এবং অন্যান্য কর্মকর্তারা এগিয়ে এসে সত্য প্রকাশ করুক। আমরা এখনও জানিনা কেন আমাদের টার্গেট করা হয়েছিল, এবং আমরা এটা জানতে চাই।

পূর্বের খবরলোডশেডিং বেড়ে যাওয়ায় জেনারেটরের চাহিদা বাড়ছে
পরবর্তি খবরসিরিজ জয়ের লক্ষ্যে আজ মাঠে নামছে বাংলাদেশ